প্রশ্ন-এক ব্যক্তি তাঁর যেকোন একটি রোগের কারণে হাকিমের কাছে গেল।  তার চিকিৎসকায় তাঁর রোগ সেরে গেল। হাকিম সাহেব তার ভিজিট এর বদলে হাকিমের বাড়ির বাৎসরিক পূজার জন্য ৫০ টাকা দাবি করল।

প্রশ্ন হল টাকা কি দেওয়া জায়েজ হবে? (রোগিটি ছিল মুসলমান। হাকিম টি ছিল হিন্দু)

উত্তর- بسم الله الرحمن الرحيم

ভিজিট স্বরূপ টাকা দেয়া জায়েজ আছে। কিন্তু পূজার জন্য টাকা দেয়া জায়েজ নয়।

তাই হাকীমকে বলতে হবে, আমি তোমার পূজার জন্য নয়, বরং আমার রোগের চিকিৎসার ভিজিট চার্জ হিসেবে পঞ্চাশ টাকা প্রদান করছি। এভাবে বলে প্রদান করলে জায়েজ হবে।

কিন্তু পূজার জন্য নিয়ত করে প্রদান করলে জায়েজ হবে না।

وَتَعَاوَنُوا عَلَى الْبِرِّ وَالتَّقْوَىٰ ۖ وَلَا تَعَاوَنُوا عَلَى الْإِثْمِ وَالْعُدْوَانِ ۚ وَاتَّقُوا اللَّهَ ۖ إِنَّ اللَّهَ شَدِيدُ الْعِقَابِ [٥:٢]

সৎকর্ম ও খোদাভীতিতে একে অন্যের সাহায্য কর। পাপ ও সীমালঙ্ঘনের ব্যাপারে একে অন্যের সহায়তা করো না। আল্লাহকে ভয় কর। নিশ্চয় আল্লাহ তা’আলা কঠোর শাস্তিদাতা। [সূরা মায়িদা-২]

عن الإمام القرافى أنه أفتى بأنه لا يعاد ما انهدم من الكنائس، وان من ساعد على ذلك، فهو راض بالكفر والرضا بالكفر كفر (رد المحتار، فصل فى الجزية، مطلب فى أحكام الكناس والبيع-6/330)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা

By Anonto Rajan

রবের প্রতি বিশ্বাস সবসময়...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *