স্ত্রীর জন্য শ্বশুর শাশুড়ির খিদমত করা কি আবশ্যক?

স্ত্রীর জন্য শ্বশুর শাশুড়ির খিদমত করা কি আবশ্যক?

সুওয়াল

আমার প্রশ্ন হল, স্ত্রীর জন্য শ্বশুর শাশুড়ির খিদমত করা কি আবশ্যক? যদি করতে না চায়, তাহলে জোরজবরদস্তীপূর্বক বাধ্য করা যাবে কি? এ বিষয়ে শরয়ী সমাধান জানতে চাই।

জাওয়াব

যদি স্ত্রী স্বেচ্ছায় শ্বশুর শাশুড়ির খিদমত করে তাহলে উত্তম। কিন্তু করতে না চায়, তাহলে স্ত্রীকে খিদমতের জন্য বাধ্য করা যাবে না। কারণ, এটি তার দায়িত্বের অন্তর্ভুক্ত বিষয় নয়। এটি কেবলই তার সুন্দর আখলাক ও সামাজিক বন্ধনের স্থিতিশীলতার জন্য নৈতিক কাজ হিসেবে পরিগণিত।

তাই স্ত্রীদের উচিত সাধ্যানুপাতে শ্বশুর শাশুড়ির খিদমত করা। কারণ, আজকের গৃহবধূও এক সময় শ্বশুর শাশুড়ি হবেন, তখন তাদেরও খিদমতের প্রয়োজন হবে। সেই দিকে চিন্তা করে বৃদ্ধ শ্বশুর শাশুড়িকে নিজের মা ভেবে খিদমত করা উচিত। এতে করে আল্লাহ তাআলা দুনিয়া ও আখিরাতে ইজ্জত দান করবেন।

কিন্তু এক্ষেত্রে শ্বশুর শাশুড়িদের অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে, পুত্রবধূর দায়িত্ব ছিল না তাদের খিদমত করা। কিন্তু পুত্রবধূ দয়াপরবশ হয়ে কাজটি করছেন। তাই তাকে নিজের কন্যার মত স্নেহ ও মোহাব্বত করা উচিত। অহেতুক তার দোষ তালাশে মত্ত হওয়া। তাকে স্বামীর কাছে,প্রতিবেশীর কাছে ছোট করার জন্য দোষচর্চা করা খুবই ঘৃণিত ও নিকৃষ্ট কাজ। যা থেকে বিরত থাকা প্রতিটি শ্বশুর শাশুড়ির কর্তব্য।

ليس للرجل أن يستخدم امرأته الحرة (المحيط البرهانى-4/237، رقم-4151

ليس للرجل أن يستخدم امراته الحرة الخ (الفتاوى التاتارخانية-4/209، رقم-6271

উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

By Anonto Rajan

রবের প্রতি বিশ্বাস সবসময়...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *